Mirpur Cantonment Public School and College মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ                                                                                  EIIN-136788,   School Code-1405,   College Code-1374 Online Job Application

About College

About College

তথ্য চিত্রে মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ
প্রারম্ভিকা:
মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ স্বল্প দৈর্ঘের পথ পরিক্রমায় শিক্ষা, সহ-শিক্ষা কার্যক্রম, খেলাধুলায় আশাতীত সাফল্য অর্জনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজ সমূহের মধ্যে উদীয়মান নক্ষত্রের মতো আলো ছড়িয়ে অনুকরণীয় ও ঈর্ষণীয় বিদ্যাপীঠে পরিণত হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের প্রবেশমুখ থেকে শুরু করে সিঁড়ি প্রতিটি ফ্লোর মন কাড়া শিক্ষাপোকরণে সজ্জিত প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষাবোদ্ধাদের কাছে ইতোমধ্যে জ্ঞানের মিউজিয়াম অভিধায় ভূষিত হয়েছে। ‘ভালো মানুষ হও-সাফল্য তোমার পেছনে ছুটবে’ এই চেতনায় শিক্ষার্থীদের অন্তঃকরণকে উজ্জ্বল করার আকাঙক্ষায় নিরন্তর কাজ করে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি। অপ্রতিরোধ্য স্বপ্ন নিয়ে দীপ্ত শপথে এগিয়ে চলেছে মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ। আরাধ্য এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে  শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে রয়েছে অবিচ্ছেদ্য বন্ধন। প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক রূপরেখা তুলে ধরছি এ প্রতিবেদনে।

অবস্থান:

মিরপুর ডিওএইচএস সংলগ্ন মিরপুর ক্যান্টনমেন্টের এডুকেশন ভিজেলে প্রায় ৩.৮৩ একর জমির উপর নির্মিত মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের স্বপ্নীল যাত্রা ২০১৪ সালের ২রা জানুয়ারি। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানটি বাংলা ভার্সনে নার্সারি হতে দ্বাদশ শ্রেণি এবং ইংরেজি ভার্সনে নার্সারি হতে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সর্বমোট প্রায় ৭০০০ জন শিক্ষার্থীকে শিক্ষা প্রদান করছে। বর্তমানে শিক্ষক সংখ্যা ১৭০ জন।


মূলমন্ত্র:
“Learn Create Lead” আভিধানিক অর্থ "শেখো-সৃজন করো-নেতৃত্ব দাও"। মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা  থেকে অর্জিত জ্ঞানের আলোয় আলোকিত হবে শিক্ষার্থীদের মেধা-মনন, সৃজন উৎসবে মেতে উঠে নেতৃত্ব দিয়ে বিনির্মাণ করবে নতুন বিশ্ব। নতুন প্রজন্মের নেতৃত্বের নতুন আলোর দীপ্তিতে আলোকিত হবে আমাদের পরিবার, সমাজ, দেশ তথা বিশ্ব। মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী জ্ঞান পিপাসু ও সত্যান্বেষী হবে। সে ভালোবাসবে তার কাজ, মানুষ, বিশ্ব এবং তার ¯স্রষ্টাকে।


লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য:
প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সততা, নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধে উদ্দীপ্ত করে শিক্ষার্থীদের হৃদয়কে আলোকিত করা এই প্রতিষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্য। একটি ব্যতিক্রমী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে এ প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে নির্ধারিত পাঠ্যক্রম ও সহশিক্ষা কার্যক্রমের বিষয়সমূহের উপর যথাযথ গুরুত্ব আরোপের মাধ্যমে সশস্ত্র বাহিনীর সন্তান/পোষ্য ও সংশ্লিষ্ট এলাকার অধিবাসীদের সন্তানদের পরিপূর্ণ মানুষ তথা সুনাগরিক রূপে গড়ে তোলা। সেই মহান ব্রতে প্রতিষ্ঠানটি নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে পিইসি, জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি প্রতিটি পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা কৃতিত্বের সাথে শতভাগ সাফল্য অর্জন করে চলেছে।

শিক্ষার মাধ্যম:
প্রাযুক্তিক উৎকর্ষের এই যুগে আমাদের শিক্ষার্থীদের যুগপোযোগী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি ক্লাসরুমেই অত্যাধুনিক সাউন্ড সিস্টেম ও মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে পাঠদান সম্পন্ন হয়।


এন্টিবুলিং:
‘ভালো মানুষ হও’ সাফল্য তোমার পেছনে ছুটবে’- এই আপ্ত বাক্যকে সামনে রেখে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অশোভন উক্তি ও অশালীন আচরণ করা থেকে বিরত করার লক্ষ্যে রয়েছে এন্টিবুলিং প্রজেক্ট।

উন্মুক্ত পাঠশালা:
প্রকৃতির সান্নিধ্যে সবুজের ছোঁয়ায় থেকে শিক্ষার্থীরা যেন শিক্ষা লাভের সুযোগ পায় সেজন্যে প্রতিষ্ঠানে একটি উন্মুক্ত পাঠশালা কর্নার করা হয়েছে।


ক্লাবসমূহ:
প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সহশিক্ষা কার্যক্রমকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজে মোট ২৪টি ক্লাব কার্যক্রম চলমান রয়েছে এখানে।

 

এডুটেইনমেন্ট:
‘এডুটেইনমেন্ট’ শব্দটির আভিধানিক অর্থ শিক্ষণীয় মনোরঞ্জন। আনন্দের মাধ্যমে শিক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে শিক্ষাকে বিনোদনে সমন্বয় করে শিক্ষার্থীদের সামনে এলইডি স্ক্রিনের মাধ্যমে বড় পর্দায় উপস্থাপন করা হয়।

 

আইডিয়া প্যাড:
একজন শিক্ষার্থী প্রতিদিন বিচিত্র ধরনের অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়। আইডিয়া প্যাড শিক্ষার্থীর মনের সেই খোলা জানালা, যার মাধ্যমে সে নিত্যদিনের সেসব ঘটনাবলী লেখনী ও ছবি আঁকার মাধ্যমে প্রকাশ করে।

 

ওরাসি:
ওরাসি শব্দের অর্থ ‘বাকপটুতা’। এই পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীরা জড়তা কাটিয়ে সুবক্তা হতে পারে এবং গঠনমূলক চিন্তায় দক্ষতা অর্জন করে। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে নিজের মতামত ব্যক্ত করার প্রশিক্ষণ লাভ করে।


পোস্টার প্রেজেন্টেশন:
শিক্ষার্থীদের পাঠ গ্রহণকে সহজতর ও আকর্ষণীয় করার উদ্দেশ্যে বিষয়ভিত্তিক পোস্টার প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানদক্ষতা, রুচি ও শৈল্পিকতা বৃদ্ধির চেষ্টা করা হয়।

 

প্রেরণামূলক বক্তব্য প্রদান:
শিক্ষার্থীরা মানসিকভাবে সুস্থ না হলে যথার্থভাবে পাঠ গ্রহণ করতে পারে না। শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতিকল্পে প্রতিদিন শ্রেণি কার্যক্রমের পূর্বে শিক্ষার্থীদের প্রেষণামূলক বক্তব্য প্রদান করা হয় ও প্রতিদিন নীতিবাক্য দিয়ে ক্লাস শুরু করা হয়।

 

স্বাস্থ্য সেবা:
শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের জন্যে একজন নার্সিং স্টাফ ও একজন অভিজ্ঞ নার্স এবং নিকটস্থ একটি স্বনামধন্য হাসপাতালের সাথে চুক্তি করা হয়েছে।

 

ক্যানটিন-ডালিয়া:
শিক্ষার্থীদের সু-স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে স্বাস্থ্যকর খাবার পরিবেশের উদ্দেশ্যে আধুনিক সুবিধা সমৃদ্ধ একটি উন্নমানের ক্যানটিন রয়েছে।


গ্রিনকার্ড ও গোল্ডকার্ড:
শিক্ষা, সহশিক্ষা ও শৃঙ্খলায় অসাধারণ পারদর্শিতার জন্য গ্রিনকার্ড ও গোল্ডকার্ড প্রদান করে শিক্ষার্থীদের অনুপ্রাণিত করা হয়। একমাসে সর্বোচ্চ গ্রিনকার্ডধারীদের প্রাত্যহিক সমাবেশে অভিভাবকদের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের হাতে গোল্ডকার্ড তুলে দেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ।


জন্মদিনের শুভেচ্ছা কার্ড:
অধ্যক্ষ মহোদয় প্রতি শিক্ষার্থীকে জন্মদিনে শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে শুভেচ্ছা কার্ড প্রদান করেন।

 

নিরাপত্তা ব্যবস্থা:
মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজে শিক্ষার্থীদের নিñিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যে প্রতিষ্ঠানে মোট ২১০টি সিসি ক্যামেরা, ৪টি আর্চওয়ে এবং ৬টি মেটাল ডিটেক্টর সংযোজিত হয়েছে। অগ্নিকান্ড প্রতিরোধে প্রতিটি ফ্লোরে রয়েছে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের ব্যবস্থা।

 

উপসংহার:
এভাবে বহুমাত্রিক উপায়ে প্রতিষ্ঠানের প্রাণ শিক্ষার্থীদের শিক্ষায় ও সহশিক্ষা কার্যক্রমে উজ্জীবিত করা নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠান।